বুধবার , অক্টোবর 18 2017
হেরে গেলো টাইগাররা

অল্প রানের পুঁজিতে হেরে গেলো টাইগাররা

গত বুধবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামে মাশরাফিরা। কিন্তু শুরু থেকেই ব্যাটিং বিপর্যয়ের কবলে পরলে, এক মাত্র  মোসাদ্দেক হোসেনের উপর নির্ভর করেই সবকয়টি উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ সংগ্রহ করে অপ্রতিরোধ্য ২০৮ রান। ২০৯ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে সফরকারীরা ২ বল এবং ২ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের লক্ষে পৌঁছে যায়।

দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা ভালোই করেছিল বাংলাদেশ। সাকিবের দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলে নওরোজ মাঙ্গালকে এবং শেষ বলে এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে ফেলেন রহমত শাহকে সাঁজ ঘরের পথ দেখিয়ে ছিলেন তিনি এবং অভিষেক ম্যাচে খেলার ১৪ তম ওভারে বল করতে এসে হাশমাতুল্লাহ শাহিদিকে সাঁজ ঘরের পথ দেখিয়ে ছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন। অপরদিকে ছন্দে থাকা ব্যাটসম্যান শেহজাদকেও সাঁজ ঘরের পথ দেখিয়ে ছিলেন সাকিব আল হাসান। জাবার আগে তিনি দলকে দিয়ে যান ৩৫ বলে মূল্যবান ৩৫ রান।

এর পর আসতে আসতে ম্যাচ বাংলাদেশের কাছ থেকে আফাগানদের কাছে চলে যেতে থাকে। নবী ও স্তানিকজাইয়ের শত রানের জুটিই আফগানদের জয়ের লক্ষের পথকে সহজ করে দেয়। ৪০ তম ওভারে আউট হয়ে যান নবী। তিনি ৬১ বলে ৪৯ রান করেছিলেন।

৪১ তম ওভারে  মোসাদ্দেক বল করতে এসে সাব্বিরের ক্যাচে পরিণত করেন স্টানিকজাইকে। স্টানিকজাই ফিরে জাবার আগে দলকে দিয়ে যান ৯৫ বলে ৫৭ রান এবং সাকিব ৪৫ তম ওভারে বল করতে এসে রশিদ খানকে আউট করেও করার কিছুই থাকেনা স্বাগতিকদের। কারন এর মধ্যেই ম্যাচ চলে যায় আফগানদের হাতে।

শেষ ওভার বল করতে আসেন তাসকিন। তখন সফরকারিদের প্রয়োজন ছিল মাত্র ২ রান। তৃতীয় বলে নাজিবুল্লা জাদরান আউট হলেও পরের বলে চার মেরে খেলার সমাপ্তি টানেন দাওলাত জাদরান। তাই শততম জয়ের আসা অপূর্ণ রেখেই মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা।

সাকিব আল হাসান ১০ ওভার বল করে ৪৭ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট।

মোসাদ্দেক হোসেন  ৭৯ বলে ৪৫ রান এবং ১০ ওভার বল করে ৩০ রান দিয়ে নিয়েছেন ১ উইকেট।

ম্যাচ সেরা = মোহাম্মদ নবী।

 

Check Also

মেসির জাদুকরী ফুটবলে মুগ্ধ সবাই

মেসির জাদুকরী ফুটবলে মুগ্ধ সবাই

২০১৬ সালটা দুর্দান্ত কেটেছে রিয়াল মাদ্রিদ তারকা ফরোয়ার্ড ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। কারন চ্যাম্পিয়ন লিগের পর ইউরোর …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

16 − 15 =