বুধবার , অক্টোবর 18 2017
ম্যাশের বিদায়ী ম্যাচে আবেগময় মুহূর্ত

ক্রিকেটের টি-টুয়েন্টি ফর্মেটে ম্যাশের বিদায়ী ম্যাচে আবেগময় মুহূর্ত

গতকাল কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে সতীর্থরা চমৎকার বোঝাপড়ায়, দুর্দান্ত বোলিং ও ফিল্ডিং দিয়ে জয়সূচক উপহারে সিক্ত করেছে ক্যারিয়ারের শেষ টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলা বাংলাদেশ দলের গর্বিত অধিনায়ক ম্যাশকে।

সম্পূর্ণ খেলা জুড়েই ছিল সতীর্থদের জিতার প্রানপন চেষ্টা। আর খেলা শেষ হবার সাথে সাথেই সবাই ছুটে গিয়েছিলো বিদায়ী সতীর্থ মাশরাফির কাছে।

খেলা শেষে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের টি-টুয়েন্টি ফর্মেটে সম্ভাব্য অধিনায়ক সাকিব বলেন,

“তিনি আমাদের ড্রেসিং রুমে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একজন মানুষ। ক্রিকেট খেলা শুরু করার আগে থেকেই তার সাথে আমার পরিচয় ছিলো। তাছাড়া আমরা একই যায়গা থেকে এসেছি। সত্যি কথা বলতে তিনি আমাদের কাছে কি ছিলেন, তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবোনা”

“তার সামনের দিন গুলির জন্য শুভকামনা রইল। ওয়ানডে ক্রিকেটে তিনি এখনও আমাদের অধিনায়ক। আশা করি আরও সামনে থেকে আমাদের নেতৃত্ব দিবেন”

অপরদিকে ম্যাশ বলেন,

‘জয় দিয়ে শেষ করাটা অসাধারণ। সামনে দলের জন্য এটা অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। আমি এই খেলোয়াড়দের সাথে খেলতে পেরে গর্বিত। এই দলটাতে অনেক ভালো খেলোয়াড় রয়েছে। সতীর্থ, স্টাফ ও বিসিবিকে ধন্যবাদ, যারা খারাপ সময়ে আমার পাশে ছিলেন। আমার পরিবারের প্রতিও রইলো কৃতজ্ঞতা”

তিনি অশ্রুসিক্ত নয়নে বলেন,

‘আসলে এটা আমার জন্য গর্ব করার মতো একটা সিরিজ। দেশ জিতেছে, তাতে খুব ভালো লাগছে। শেষ ম্যাচে আমি অধিনায়ক ছিলাম, আবার ম্যাচটাও জিতেছে। এটা আমার সারা জীবন মনে থাকবে”

‘খেলার সময় আমি খুব অস্থির ছিলাম। নিজেকে সামলে নিতে খুব কষ্ট হচ্ছিলো। আর সেই সময়েই উপুল থারাঙ্গার সহজ ক্যাচ তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হয়েছি। আমি সে সময় নিজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছিলাম।  আর সে সময় সাকিব এগিয়ে এসেছে। তার জন্য শুভকামনা রইল”

‘একটু ইমোশন থাকবেই। বাংলাদেশের জার্সি পরে ১০ বছর টি-টুয়েন্টি খেলেছি। অনেক খেলোয়াড়ের সাথে খেলেছি। তাদের সাথে অনেক স্মৃতি রয়েছে। আর শেষ টাও অনেক ভালো হয়েছে। সত্যি খুব ভালো লাগছে আমার”

‘হ্যাঁ আমার অবসরে অনেকেই কেঁদেছে। মাঝে মধ্যে ওদেরকেও বুঝাতে হয়েছে। আসলে সবার মাঝেই একটা ইমোশন থাকেই। আমার পরিবার বা অনেকেরই খারাপ লেগেছে। সত্যি তাদের সম্মান দিয়ে বলছি। আমার জন্য কারোর চোখে পানি ফেলা, এটা আমার জন্য সত্যি বিরাট পাওয়া। তাছাড়া আমি এখনেই ক্রিকেট থেকে বিদায় নিচ্ছি না। ওয়ানডে ক্রিকেটে এখনও খেলবো”

এর আগে ম্যাশের অবসরের কথা শুনে সবাই ভেঙ্গে পড়েছিলো। সিনিয়র ক্রিকেটাররা মানসিক ভাবে প্রস্তুত থাকলেও আশ্রুশিক্ত নয়নে মাশরাফির রুমে উপস্থিত হয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ, মুস্তাফিজুর রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন, নুরুল হাসান সোহান ও তাসকিনরা।

ম্যাশ সম্পর্কে বলতে গিয়ে টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বলেন,

‘ভালো সব কিছু নিয়ে একটা সময় শেষ হয়। হয়তোবা এটা তারিই একটি। আমরা যখনই হতাশ হয়েছি, তিনি এসে আমাদের উজ্জীবিত করেছেন। আমার মতে, উনিও টি-টুয়েন্টির জার্সিটা মিস করবেন”

তারপর সতীর্থরা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অকৃত্রিম ভালোবাসায় সিক্ত করেছেন বাংলাদেশ দলের গর্বিত অধিনায়ক ম্যাশকে,

মুশফিক আবেগময় ভাষায় সোশ্যাল পেজে লিখেছেন,

‘ম্যাশ, আপনাকে ছাড়া দল ভাবা, আমাদের প্রত্যেকের জন্য সত্যি অনেক কঠিন। আসলে আপনি, সত্যিকারের চ্যাম্পিয়ন। আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি, আমার মতো দলের সবাই আপনার নেতৃত্বে খেলতে পেরে গর্বিত”

বিগ হিটার তামিম

বর্তমান বাংলাদেশ ক্রিকেটে যে সম্মান বা মর্যাদা দেখি, তার সম্ভব হয়েছে ম্যাশের নেতৃত্বেই। আমার কাছে সেটা বিশ্বরেকর্ড ৪০০/৫০০ উইকেটের মতই। তিনি দেখিয়েছেন কিভাবে ড্রেসিং রুমকে একটি পরিবারে পরিনত করা যায়, আবার ফলও এনে দেওয়া যায়। তিনি আসলেই অনুসরণীয় একজন। আমার মতে তিনি একজন জীবন্ত কিংবদন্তী।

‘তার সম্পর্কে যতই বলি, তা কমেই হবে। আসলে তার সম্পর্কে বলে শেষ করা যাবে না। তিনি আমাদের কাছে কিংবদন্তীর মতই। তার হয়তোবা বিশ্বরেকর্ড নাই, নাই ৪০০-৫০০ উইকেট। কিন্তু উনি নিজের মত ছাপ রেখেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটে”

মাহমুদউল্লাহর কণ্ঠে ফুটে উঠেছে আপন জন হারানোর হাহাকার,

‘আমরা সবাই আপনাকে সত্যি খুব মিস করবো। বিশেষ করে আমি। আপনি আমার ভাই, বন্ধু যার সঙ্গে সব কিছু ভাগাভাগি করতে পারি। আপনি একজন যোদ্ধা, একজন অসাধারণ নেতা, অধিনায়ক ও সত্যিকারের চ্যাম্পিয়ন”

সত্যি খুব খারাপ লাগছে। কিন্তু আমাদের জীবনটাই এমন। আপনি আমাদের দেখিয়েছেন, একটি দলকে কিভাবে পরিবার হিসেবে গড়ে তুলা যায়। আপনার কাছ থেকে এত কিছু শিখেছি! আপনি ভালো একজন ক্রিকেটার এবং সবচেয়ে ভালো একজন মানুষ। ম্যাশ, আমরা সবাই আপনাকে ভালোবাসি”

শেষে তাসকিন লিখেছেন,

‘জানি না আর কতদিন এই হাতটা খেলার মাঠে আমার কাঁধে পাব। জাতীয় দলের অভিষেক হওয়ার আগে থেকেই আপনি আমার আইডল। আর গত তিন বছর ধরে একজন অভিভাবকের থেকেও অনেক বেশি কিছু। সব সমস্যার সমাধক হিসেবেও বার বার আপনাকেই জ্বালাবো ১০০% সিওর”

‘ভাইয়া জীবনে যাদেরকে অফুরন্ত ভালবাসি এবং যাদেরকে মানি তার মধ্যে আপনি অন্যতম। অনেক কিছু নেওয়ার বাকি আছে আপনার কাছ থেকে। শিখার আশার অপেক্ষায় থাকলাম …”

Check Also

sakib-mustafiz-ipl

আইপিএলের দশম আসরেও অপরিবর্তিত আছেন সাকিব ও মুস্তাফিজ

সামনেই আইপিএলের দশম আসর। তাই এরি মধ্যেই শুরু হয়েছে খেলোয়াড় ছাড়ার পালা। কারন আইপিএল কমিটি …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 × three =