বৃহস্পতিবার , জুলাই 20 2017
আশরাফুল

ফেরার অপেক্ষায় আশরাফুল

দীর্ঘ দিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে আছেন ঢাকার ছেলে আশরাফুল। ২০০১ সালের ১১ই এপ্রিল জিম্বাবুয়ের ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডে অভিষেক হয় তার। ওয়ানডে ক্রিকেটে শুরুটা ভালো না হলেও ২০০১ সালের সেপ্টেম্বরে সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব গ্রাউন্ডে এশিয়ান টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে তিনি তার অভিষেক টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১১৪ রান করে কনিষ্ঠতম খেলোয়াড় হিসেবে গোটা ক্রিকেট বিশ্বকেই তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন।

এর পর থেকে তার উপর বিসিবির প্রত্যাশাটা বেরে যায়। কিন্তু পরবর্তীতে ভালো পারফর্ম করতে না পারলে জাতীয় দল থেকে ছিটকে পরেন। আবারো ভালো ফলের প্রত্যাশায় জাতীয় দলে চান্স পেয়ে একের পর এক সাফল্য নিজের করে নেন। ২০০৭ সালে টেস্ট ক্রিকেটে এবং তার পরে ওয়ানডে ক্রিকেটেও অধিনায়কত্ব পান। আশরাফুলেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ইতিহাসে দ্বিতীয় কনিষ্ঠতম অধিনায়ক।

২০১৩ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএলে) ম্যাচ পাতানোর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠে। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ৮ বছরের জন্য সকল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হন। পরে নিষেধাজ্ঞা কমিয়ে ৫ বছর করা হয়। জাতির কাছে ক্ষমা চাইলেও পরবর্তীতে ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টেও দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন।

আগামী ১৩ আগস্ট ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ হলেও ২ বছরের নিষেধাজ্ঞা এখনও বহাল রয়েছে আশরাফুলের। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে আর কোন বাঁধা থাকবেনা । তাই ২০ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া বিসিএলে খেলার সম্বভনা থাকবে আশরাফুলের।

আশরাফুল তার অনুভূতি সম্পর্কে সংবাদ কর্মীদের বলেন,

সত্যি আমি ভাগ্যবান, দ্বিতীয় সুযোগ পাচ্ছি। এটা আমার অন্যরকম অনুভূতি। ভক্তরা আমার ফেরার অপেক্ষায় ছিল। আমি তাদের নিরাশ করবোনা। ভক্তদের জন্য প্রস্তুত আমি।

আমি গত ৩ বছর ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেট বোর্ডের আন্ডারে এবং আইসিসির অধীনে কোন ক্রিকেট খেলতে পারিনি। আগামী আগস্টে থেকে আবারো খেলতে পারবো। বিসিএল দিয়েই শুরু করবো বাংলাদেশে। আগামী ২০ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে ৪ দিনের ক্রিকেট।

সমর্থকেরা আমার কাছে আশা করবে, আমি যেন আরও ভালো ভালো ইনিংস উপহার দিতে পারি। আমি একজন ব্যাটসম্যান, আমার এখন ৩২ হচ্ছে। আমি যদি ফিট থাকতে পারি। আমার বিশ্বাস, আরও ১০ বছর ক্রিকেট খেলতে পারবো। এখন আমাকে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে হবে। আমি যদি নিজেকে সঠিক প্রমাণিত করতে পারি, তাহলে বাংলাদেশ দলে চান্স পাবো। আমার বিশ্বাস আমি বাংলাদেশ দলে খেলবো।

এরিই মধ্যে ক্রিকেট পাগল আশরাফুল পারি দিয়েছেন ইংল্যান্ডে। সেখানে তিনি অস্বীকৃত টুর্নামেন্ট সানডে ক্রিকেট লিগে খেলছেন। তাই সাসেক্সের হয়ে খেলতে যাওয়া কাঁটার মাস্টার মুস্তাফিজের সাথে দেখা করা এবং মেমসাহেম অব টেমস রেস্টুরেন্টে ডিনার করাটা মিস করেননি।

Check Also

মেসির জাদুকরী ফুটবলে মুগ্ধ সবাই

মেসির জাদুকরী ফুটবলে মুগ্ধ সবাই

২০১৬ সালটা দুর্দান্ত কেটেছে রিয়াল মাদ্রিদ তারকা ফরোয়ার্ড ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। কারন চ্যাম্পিয়ন লিগের পর ইউরোর …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

14 − eleven =